যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে গেল চীন

বৈশ্বিক অর্থনীতির ময়দানে যুক্তরাষ্ট্রকে ভালোভাবেই ধাওয়া করছে এশিয়ার পরাশক্তি চীন। অর্থনৈতিক লড়াইটা জমজমাট থাকা অবস্থাতেই একটি গুরুত্বপূর্ণ দিকে যুক্তরাষ্ট্রকে পেছনে ফেলে দিয়েছে চীন। বিশ্বজুড়ে দূতাবাস ও কূটনীতিবিদের সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রকে প্রথমবারের মতো পেছনে ফেলেছে চীন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলতি বছর অস্ট্রেলিয়ার লুভি গ্লোবাল ডিপ্লোম্যাটিক ইনডেক্স ম্যাপে উঠে এসেছে এ তথ্য। তাতে দেখা গেছে, বিশ্বজুড়ে চীনের এখন ২৭৬ জন কূটনীতিবিদ আছেন, আর যুক্তরাষ্ট্রের আছে ২৭৩ জন। চীনের দূতাবাস আছে ৯৬টি, যুক্তরাষ্ট্রের আছে ৮৮টি। বিশ্বের কূটনৈতিক পরাশক্তি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রকে টপকে যাওয়ার দৌড়ে বেশ বড়সড় একটা অগ্রগতিই হয়েছে চীনের।

আর্চারকে বর্ণবাদী গালি দিয়েছেন এক ইংলিশ

ম্যাচের শেষ দিনে বর্ণবাদী গালি খেয়েছেন আর্চার। ছবি : এএফপি

নিউজিল্যান্ড-ইংল্যান্ড টেস্টের শেষ দিনে বর্ণবাদী আচরণের শিকার হন ইংল্যান্ডের পেসার জফরা আর্চার। নিউজিল্যান্ডের কোনো সমর্থক আর্চারকে বর্ণবাদী গালি দিয়েছে বলে মনে করা হলেও, এখন শোনা যাচ্ছে, ইংল্যান্ডের এক সমর্থকই বারবার আর্চারের গায়ের রং নিয়ে বিদ্রূপ করছিলেন

মাউন্ট মঙ্গানুইতে প্রথম টেস্টে ইংল্যান্ডকে ইনিংস ও ৬৫ রানে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড। ম্যাচের শেষ দিনে নিউজিল্যান্ড সমর্থকদের বর্ণবাদী আচরণের শিকার হয়েছেন ইংলিশ পেসার জফরা আর্চার—শোনা গিয়েছিল এমন কথাই। ব্যাপারটা নিয়ে তোলপাড় চলছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটে। এরপর থেকেই তোলপাড় চলছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটে। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের (এনজেডসি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভিড হোয়াইট জানিয়েছেন, যে দর্শক এমন আচরণ করেছেন তাকে আজীবনের জন্য ক্রিকেট মাঠ থেকে বহিষ্কার করা হতে পারে। কিন্তু তদন্তের মধ্যেই বেরিয়ে এসেছে অবাক করা এক তথ্য— কোনো কিউই সমর্থক নয়, বরং আর্চার বর্ণবাদী গালি খেয়েছেন নিজের দেশের সমর্থকের কাছেই!

স্ত্রীর করা যৌতুক মামলায় স্বামীর কারাদণ্ড

বরগুনায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে মারধরের দায়ে অমল চন্দ্র দাস নামের এক ব্যক্তিকে তিন বছর সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাঁকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। আজ বুধবার বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও জেলা জজ হাফিজুর রহমান এই রায়

করেছে। আমি গরিব মানুষ

আসামি অমল চন্দ্র দাস তাঁর স্ত্রী অঞ্জলী রাণী দাসকে যৌতুকের দাবিতে মারধর করেন—এমন অভিযোগে ২০১৩ সালের ৩০ জুন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন অঞ্জলী রাণী। মামলার বিবরণে জানা গেছে, ওই বছরের ২৩ এপ্রিল সকালে অমল দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে তাকে (অঞ্জলী) নির্যাতন করেন। স্বামীর আঘাতে বাদীর ডান চোখে মারাত্মক জখম হয়।

আসামি অমল চন্দ্র দাস বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে অঞ্জলী মিথ্যা মামলা করেছে। আমি গরিব মানুষ। উচ্চ আদালতে যাওয়ার সামর্থ্য আমার নেই।’

রাষ্ট্র পক্ষের পিপি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বাদীর সাক্ষীরা সাক্ষ্য দিয়ে মামলা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে। তাই আদালত আসামিকে সর্বোচ্চ শাস্তি দিয়েছে।

বরফের ভাস্কর্য এসে পড়ল শিশুর ওপর

বড়দিনের বাজারে এসে বরফের ভাস্কর্যের নিচে চাপা পড়ে এক শিশুর মৃত্যুর ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে ইউরোপের ছোট্ট দেশ লুক্সেমবার্গে। বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়, গতকাল রোববার বড়দিন উপলক্ষে আয়োজিত ‘ক্রিসমাস বাজারে’ এসে বরফের ভাস্কর্যের নিচে চাপা পড়ে একটি শিশু। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

শীতপ্রধান দেশগুলোতে খুবই জনপ্রিয় হলো বরফ দিয়ে ভাস্কর্য তৈরি। খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব বড়দিনের আগে আগে ইউরোপের বিভিন্ন দেশেই এই নিয়ে উৎসবের আয়োজন হয়। এসব আয়োজনে সব সময় উৎসাহী থাকে শিশুরা। লুক্সেমবার্গের রাজধানী লুক্সেমবার্গ সিটিতেও বড়দিন উপলক্ষে বাজার বসেছে। এসব বাজারে এ ধরনের ভাস্কর্য তৈরি করা হয়েছে। তবে শিশুটির ওপর কেন এই ভাস্কর্য ভেঙে পড়েছিল তা এখনো জানা যায়নি।

Bangladesh

Open

বরফের ভাস্কর্য এসে পড়ল শিশুর ওপর

পুলিশ বলছে, প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে, গতকাল স্থানীয় সময় রাত ৮টার দিকে ভাস্কর্যটি হঠাৎ ভেঙে শিশুটির গায়ের ওপর পড়ে। শিশুটি মারাত্মক আহত হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পথে অ্যাম্বুলেন্সেই তার মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জাদুঘরের ১১০ কোটি ডলারের শিল্পকর্ম চুরি

জার্মানির স্যাক্সোনি প্রদেশের ড্রেসডেন শহরের একটি জাদুঘর থেকে প্রায় ১১০ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যমানের শিল্পকর্ম চুরি হয়েছে। সেখানকার পুলিশ ও জাদুঘরের পরিচালকেরা জানিয়েছেন, গত সোমবার এই শিল্পকর্মগুলো চুরি হয়েছে।

ড্রেসডেনের রয়াল প্যালেসের গ্রিন ভল্টে ছিল হাতির দাঁত, হীরা, সোনা, রুপাসহ বিভিন্ন ধরনের অমূল্য সব রত্ন। যেগুলোর অধিকাংশই ১৮ শতকের। চোরেরা ওই জাদুঘরে ঢোকার আগে সেখানকার বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। এরপর জাদুঘরে প্রবেশ করে রত্নগুলো চুরি করে। বলা হচ্ছে, জার্মানির শিল্পকর্ম চুরির ইতিহাসে এটি অন্যতম বড় ঘটনা, যা পুরো জার্মানিকে স্তব্ধ করে দিয়েছে।

তবে ড্রেসডেনের শিল্প সংরক্ষণবিষয়ক পরিচালক ম্যারিয়ন অ্যাকেরম্যান গত সোমবার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, চোরেরা ওই জাদুঘরের সবকিছু চুরি করতে পারেনি। তিনি বলেন, ‘আমরা এসবের মূল্য নির্ধারণ করতে পারিনি। কারণ, এগুলো আসলে অমূল্য সম্পদ।’