স্ত্রীর করা যৌতুক মামলায় স্বামীর কারাদণ্ড

বরগুনায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে মারধরের দায়ে অমল চন্দ্র দাস নামের এক ব্যক্তিকে তিন বছর সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাঁকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। আজ বুধবার বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও জেলা জজ হাফিজুর রহমান এই রায়

করেছে। আমি গরিব মানুষ

আসামি অমল চন্দ্র দাস তাঁর স্ত্রী অঞ্জলী রাণী দাসকে যৌতুকের দাবিতে মারধর করেন—এমন অভিযোগে ২০১৩ সালের ৩০ জুন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন অঞ্জলী রাণী। মামলার বিবরণে জানা গেছে, ওই বছরের ২৩ এপ্রিল সকালে অমল দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে তাকে (অঞ্জলী) নির্যাতন করেন। স্বামীর আঘাতে বাদীর ডান চোখে মারাত্মক জখম হয়।

আসামি অমল চন্দ্র দাস বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে অঞ্জলী মিথ্যা মামলা করেছে। আমি গরিব মানুষ। উচ্চ আদালতে যাওয়ার সামর্থ্য আমার নেই।’

রাষ্ট্র পক্ষের পিপি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বাদীর সাক্ষীরা সাক্ষ্য দিয়ে মামলা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে। তাই আদালত আসামিকে সর্বোচ্চ শাস্তি দিয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *